বুধবার, ২২ মে, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
সিলেটে ইষ্টিকুটুম-মধুবনকে জরিমানা, নিষিদ্ধ মোল্লা লবণ-পচা খেজুর জব্দ  » «   সিলেটে অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড গুড়িয়ে দিয়েছে সিসিক  » «   সিলেটে ফিজায় মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য  » «   জগন্নাথপুরে জিনের ‘গুপ্তধন’ নিয়ে তোলপাড়  » «   দেশে ফিরলেন সাগরে বেঁচে যাওয়া সিলেটের ১৩ যুবক, বিমানবন্দরে জিজ্ঞাসাবাদ  » «   গোয়ালাবাজার-খাদিমপুর রাস্তার বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই !  » «   বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর উপজেলা আইনজীবী পরিষদের দোয়া ও ইফতার মাহফিল সম্পন্ন  » «   পবিত্র ঈদুল ফিতর ৫ জুন বুধবার !  » «   ব্রিটেনে মাদক বিরোধী অভিযান, এক সপ্তাহে ৫৮৬জন গ্রেফতার  » «   কমলগঞ্জে বন্ধনের দরিদ্র রোজাদারদের মাঝে ২ টাকায় ইফতার  » «  

সিলেটি শেফের সুস্বাদু খাবারের টানে প্রথা ভাঙ্গলেন ব্রিটেনের মেয়র

লন্ডন অফিস:
২৪ বর্গ কিলোমিটারের আয়তন জুড়ে দ্বীপ শহর পোর্টসমাউথ। একটি উজ্জ্বল দিন। তবে সেদিনটি যে শুধুই বাংলাদেশী রেস্টুরেন্ট আকাশের হবে, সেটি অনেকেই অনুমান করেননি। কিন্তু দিনটি, জাঁকজমকপূর্ণ উপলক্ষটি ‘আকাশের’ হয়েছিল।

পোর্টসমাউথের আকাশের সব শেফই সিলেটের। যে সে নয়, খোদ শহরটির লর্ড মেয়র দীর্ঘকালের প্রথা ভেঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভোজসভার ইতিহাসে নতুন অধ্যায় রচনা করলেন।

শহরটির প্রভাবশালী পত্রিকা দি নিউজে ফলাও করে আকাশ-এর বাংলাদেশী মেনু ও তার সুস্বাদু রান্নার বয়ান ছাপা হয়েছে। দি নিউজের সাংবাদিক কিম্বারলি বারবারা  লিখেছেন, লর্ড মেয়র বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেলিগেটদের সম্মানে দেয়া ভোজসভায় এই প্রথম বহিরাগত ক্যাটারারকে আমন্ত্রণ জানালেন। তিনি প্রটোকল ও ট্রাডিশন দুটোই ভেঙ্গেছেন।

অ্যালবার্ট রোডের সাউথ সি-তে ‘‘আকাশ’’ জাকিয়ে বসেছে।

লর্ড মেয়র লি মেসন দ্বারা তারা আমন্ত্রিত হওয়ার পর পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃবৃন্দ ভোজে বাংলাদেশী কোর্স নির্বাচন করেন।
আকাশ এর পক্ষে ফয়েজ আহমেদ বলেন, ‘লর্ড মেয়র ও তার অতিথিদের জন্য রান্না করা ছিল বিশাল সুযোগ। লর্ড মেয়র প্রটোকল ও ঐতিহ্য ভেঙ্গে ফেলার বিষয়টি আমাদের উপর বিরাট একটা চাপ ফেলেছিল, কিন্তু এটি নিসন্দেহে একটি উত্তেজনাপূর্ণ অভিজ্ঞতা ছিল।

আমার ভাই জাফর এবং আমি আমাদেরকে যেভাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে, তাতে আমরা ধন্য ও । উপরন্তু আমরা আবার উভয়ে পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র। তাই এভাবে অনুষ্ঠানকে সমর্থন করতে পারাটা ছিল, আমাদের জন্য অনেক কিছু। কিম্বারলি বারবারা লিখেছেন, পোর্টসমাউথ শহরটি বাংলাদেশের একটি পূর্বাঞ্চলীয় শহর সিলেটকে বিনা সুতায় বেধেছে। আকাশের সব শেফ সিলেটের, সেটা ওই বাঁধনকে করেছে দ্বিগুণ।

মেয়র মি. লি মেসন বলেন, খাবারটি উজ্জ্বলতর হয়ে আমাদের সামনে ধরা দিয়েছিল, এবং টিমটি আমাদের উত্তমরূপে ভোজন করাতে পেরেছিল।  বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিস চ্যাং বলেন, পোর্টসমাউথ যে কাজ করছে সেটা এবং বাংলাদেশী সম্প্রদায় যেভাবে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলছে, আমরা তাকে মূল্যবান বলে মনে করি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!