বুধবার, ২২ মে, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
সিলেটে ইষ্টিকুটুম-মধুবনকে জরিমানা, নিষিদ্ধ মোল্লা লবণ-পচা খেজুর জব্দ  » «   সিলেটে অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড গুড়িয়ে দিয়েছে সিসিক  » «   সিলেটে ফিজায় মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য  » «   জগন্নাথপুরে জিনের ‘গুপ্তধন’ নিয়ে তোলপাড়  » «   দেশে ফিরলেন সাগরে বেঁচে যাওয়া সিলেটের ১৩ যুবক, বিমানবন্দরে জিজ্ঞাসাবাদ  » «   গোয়ালাবাজার-খাদিমপুর রাস্তার বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই !  » «   বালাগঞ্জ-ওসমানীনগর উপজেলা আইনজীবী পরিষদের দোয়া ও ইফতার মাহফিল সম্পন্ন  » «   পবিত্র ঈদুল ফিতর ৫ জুন বুধবার !  » «   ব্রিটেনে মাদক বিরোধী অভিযান, এক সপ্তাহে ৫৮৬জন গ্রেফতার  » «   কমলগঞ্জে বন্ধনের দরিদ্র রোজাদারদের মাঝে ২ টাকায় ইফতার  » «  

সাংসদ মোকাব্বিরের প্রথম সভায় বের করে দেওয়া হলো সাংবাদিকদের !

সুরমা নিউজ ডেস্ক:
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)কে দিয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের বের করে দিয়ে শপথ নেওয়ার পর নিজ এলাকা সিলেটের বিশ্বনাথে প্রথম মতবিনিময় সভা করেছেন সিলেট-২ আসনের এমপি ও গণফোরাম নেতা মোকাব্বির খান। গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে ছিল স্থানীয় এমপি মোকাব্বির খানের মতবিনিময়।

এজন্য আগে থেকেই উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জনপ্রতিনিধিদের পাশাপাশি স্থানীয় সাংবাদিকদেরও সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সংবাদ সংগ্রহের জন্যে স্থানীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত হলে ইউএনও অমিতাভ পরাগ তালুকদার এমপি মোকাব্বির খানের উপস্থিতিতে তাদের বের দেন। পরে অনেকটা গোপনে ওই মতবিনিময় সভার সমাপ্তিও করা হয়। এনিয়ে সাংবাদিক সমাজসহ গোটা সচেতন মহলে নানা আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

তবে, এপ্রসঙ্গে স্থানীয় এমপি মোকাব্বির খান ও ইউএনও অমিতাভ পরাগ তালুকদার ভিন্ন ভিন্ন মন্তব্য করেছেন। এমপি মোকাব্বির খান বলেছেন, আমি সাংবাদিকদের আমন্ত্রণ জানাইনি এবং সভা থেকে বের হয়ে যেতেও বলিনি।

আর ইউএনও অমিতাভ পরাগ তালুকদার বলেছেন, এমপি মহোদয়ের নির্দেশেই সাংবাদিকদের সভাস্থল ত্যাগ করতে বলা হয়েছে। কারণ এমপি মহোদয় বলেছেন, সাংবাদিকদের নিয়ে পরে মতবিনিময় সভা করবেন। যে কারণে আমি সাংবাদিকদের বের হয়ে যেতে বলেছি। আসলে এটা কোন গোপন সভা নয় বলেও দাবি করেছেন তিনি।

জানাগেছে, সোমবার সকালে উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে স্থানীয় এমপির প্রথম মতবিনিময় সভার আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন। স্থানীয় সাংবাদিকসহ জনপ্রতিনিধিদের আমন্ত্রণও করা হয়। কিন্তু ওই সভায় প্রেসক্লাব একাংশের সভাপতি কাজী জামাল উদ্দিন ও অপরাংশের যুগ্ম-সম্পাদক নবীন সোহেল উপস্থিত হলে তাদের বের করে দিয়ে গোপনে সভার সমাপ্তি করা হয়। এ ঘটানয় দু’টি প্রেসক্লাব ও একটি সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ দিনভর বৈঠক করেন। বৈঠকে উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মাসিক বিশ্বনাথ ডাইজেস্ট সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জুবায়েরের সভাপতিত্বে সভায় অংশ নেন কাজী মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন (দৈনিক জালালাবাদ), মোসাদ্দিক হোসেন সাজুল (বিশ্বনাথ বার্তা সম্পাদক), তজম্মুল আলী রাজু (ইত্তেফাক), জাহাঙ্গীর আলম খায়ের (সমকাল/কাজিরবাজার), আশিক আলী (যুগান্তর), প্রনঞ্জয় বৈদ্য অপু (উত্তরপূর্ব), এমদাদুর রহমান মিলাদ (সিলেটের ডাক), মোহাম্মদ আলী শিপন (কালের কণ্ঠ), কামাল মুন্না (যায়যায়দিন), নুর উদ্দিন (সিলেটের দিনরাত), নবীন সোহেল (বাংলাদেশের খবর), আব্বাস হোসেন ইমরান (শুভ প্রতিদিন) আক্তার আহমদ শাহেদ (মানবজমিন), আব্দুস সালাম (ইনকিলাব), শুকরান আহমেদ রানা (সিলটিভি), পাভেল সামাদ (দিনকাল), মিছবাহ উদ্দিন (ডেসটিনি), বদরুল ইসলাম মহসিন (বিশ্বনাথবার্তা), মোশাহিদ আলী (সিলেট প্রতিদিন)।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!