শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সুনামগঞ্জে অর্থ আত্মসাত মামলায় নারী ইউপি সদস্য কারাগারে!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
প্রতারণামুলক অর্থ আত্বসাতের মামলায় সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের সিলিয়া বেগম নামের সাবেক এক নারী ইউপি সদস্যকে আদালত কতৃক কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।’

বুধবার সুনামগঞ্জ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক সাবেক নারী ইউপি সদস্যর জামিন না মঞ্জুর করে জেলা কারাগারে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেন।’

সেলিয়া বেগম তাহিরপুর উপজেলার বালিজুড়ি গ্রামের সৈয়দ আলীর স্ত্রী ও বালিজুড়ী ইউনিয়নের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য।

জানা গেছে, দ্বীর্ঘ দিন ধরে জেএস কনজিউমার এন্ড নিউট্রি কেয়ার লিমিটেড নামের একটি ভোক্তা কোম্পানীর প্রতিনিধি পরিচয়ে লোকজনের সাথে অভিনব জালিয়াতি ও প্রতারণা করে আসছিলেন সেলিয়া বেগম।

মঙ্গলবার পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় ফের প্রতারণা করতে গেলে দশঘর ও আশে পাশের কয়েক গ্রামের কয়েক শতাধিক ব্বিুদ্ধ লোকজন তাকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

প্রতারণার শিকার রাশেদা বেগম নামের অপর এক নারী বাদি হয়ে সেলিয়া বেগমসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার রাতেই বিশ্বম্ভরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় অপর অভিযুক্তরা হলেন, চাঁদপুর জেলা সদরের শাহিনা মিনি টাওয়ারের একটি ভোক্তা কোম্পানীর পরিচালক জসিম উদ্দিন ও সুনামগঞ্জ পৌর শহরের উকিলপাড়া আবাসিক এলাকার বাসিন্দা খালেদা আক্তার।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, কয়েকমাস পুর্বে এলাকার সহজ সরল শতাধিক নারী পুরুষকে উচ্চ বেতনে চাকুরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ২ হাজার থেকে ৫ হাজার করে নগদ টাকা হাতিয়ে নেন সেলিয়া সহ প্রতারক চক্রের সদস্যরা।

মঙ্গলবার পুরনো কৌশলে ফের দশঘর গ্রামের সৈয়দ আলীর বাড়িতে এসে ২ জন লোকের কাছ থেকে নগদ আড়াই হাজার টাকা গ্রহন করতে গেলে টাকা সহ শতাধিক বিক্ষুদ্ধ লোকজন সেলিয়াকে আটক করেন।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ ইউনিয়নের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আমিনা আক্তার বলেন, ওই মহিলা শুধু জেএস কনজিউমার এন্ড নিউট্রি কেয়ার লিমিটেডের নামেই নয় বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নামক অপর একটি সংগঠনের নামেও প্রতারনামূলকভাবে লোকজনের নিকট থেকে ইতিপুর্বে বেশ টাকা পয়সা হাতিয়ে নিয়েছে।

বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বুধবার ওই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বললেন, প্রতারণামূলক অর্থ আত্মসাতের মামলায় সেলিয়াকে আদালত কারাগারে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেছেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!