মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক খানের নামে সিলেটে রাস্তা নামকরণের দাবি প্রবাসীদের  » «   মেয়েকে বলেছি তোমার মা আল্লাহর কাছে, আমিই এখন তোমার মা এবং বাবা  » «   সিলেটে ধর্ষণ ও সন্তানদেরকে গুম করে ফেলার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার  » «   ১৪দিনেও উদ্ধার হয়নি ব্রিটিশ কন্যার স্বামী, মামলা নিচ্ছে না পুলিশ  » «   যুক্তরাজ্যে দয়ামীর ইউনিয়ন এডুকেশন ফোরাম ইউকের আত্মপ্রকাশ  » «   সুনামগঞ্জে আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা, আটক ৪  » «   সিলেটসহ সাত জেলায় সেনা কর্মকর্তার স্ত্রী-সন্তানসহ ১০ জনের মৃত্যু  » «   সিলেটে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত যারা  » «   নৌকার প্রার্থী আতাউরের বাড়িতে বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী পল্লব!  » «   হবিগঞ্জে প্রেমিকের সাথে অভিমান করে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা  » «  

ভোটের মাঠে সরব মুহিবুর রহমান, চষে বেড়াচ্ছেন প্রত্যন্ত অঞ্চল

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সিলেট-২ আসনে জয়ের স্বপ্ন নিয়ে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন মুহিবুর রহমান।ভোটারদের সমর্থন আদায়ের লক্ষ্যে এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। ভোট প্রার্থনায় রাত-দিন মানুষের দ্বারে-দ্বারে ঘুরছেন ভোটের মাঠে দক্ষ সাবেক এই উপজেলা চেয়ারম্যান।

স্বচ্ছ ইমেজ এবং নিজস্ব ভোট ব্যাংক দিয়ে নির্বাচনে তিনি প্রতিপক্ষের কাছে শক্ত প্রতিদ্বন্ধি। নির্বাচনে বড় দুই জোটের মাথাব্যথার কারণ মুহিবুর রহমান। বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তার কর্মী সমর্থকরা।

মুহিবুর রহমান সুরমা নিউজকে বলেন, আমার নির্বাচন করার কোন ইচ্ছা ছিলনা শুধু আমার এলাকার জনগণ, নেতাকর্মী ও সমর্থকদের আন্তরিকতা ভালোবাসা ও তাদের অনুরোধে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। জনগণ যেহেতু আমাকে দাঁড় করিয়েছে এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে আমি বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো ইনশাআল্লাহ। বর্তমান সরকারের গত ১০ বছরের সকল উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের ছোঁয়া দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় হলেও শুধুমাত্র আমাদের এই দুটি উপজেলা এ থেকে ছিল বঞ্চিত। এ অবস্থা থেকে পরিত্রান পেতে ও আসনটি পুনরুদ্ধার হচ্ছে আমার মুল লক্ষ্য।

উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন মুহিবুর রহমান। এরপর ২০০৩ সালে জাতীয় পার্টি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন তিনি। একই ভাবে ২০১৪ সালেও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ নির্বাচন করেন তিনি। ১৯৮৫ সালে বিপুল ভোটে বিশ্বনাথে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর উত্থান ঘটে মুহিবুর রহমানের। ১৯৯১ সালে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন মুহিবুর রহমান। ২০০৯ সালে আবারও জাতীয় পার্টির ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়াকে পরাজিত করে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মুহিবুর রহমান।  ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনেও তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে পরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!