বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
ডিম বালককে বিয়ের প্রস্তাব শ’ শ’ অস্ট্রেলীয় তরুণীর  » «   সিলেটে মেশিনে আদায় হবে যানবাহনের মামলার জরিমানা  » «   রাজনগরে কুড়িয়ে পাওয়া শিশু দু’মাস পর পেল নতুন মায়ের কোল  » «   বিয়ানীবাজারে এবার পরাজিত খছরু’র বাসায় বিজয়ী ভাইস চেয়ারম্যান জামাল!  » «   নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুরের কৃতজ্ঞতা  » «   নিউজিল্যান্ডে শুক্রবারের জুম্মার আযান ও নামাজ সম্প্রচার করা হবে : জেসিন্ডা  » «   মরমী গানের মাধ্যমে আরকুম শাহ মানুষকে সত্যের পথে ডেকেছেন : ইকবাল সোবহান  » «   নিজেই নির্বাচনী পোস্টার সরিয়ে নিলেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রেমসাগর  » «   কারাগারে আসামীর মৃত্যুর খবরে নবীগঞ্জে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-১০  » «   আবরারের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের  » «  

প্রসঙ্গ খামোশ : মাওলানা ভাসানী থেকে ডক্টর কামাল

এইচ. এম. ময়নুল হক:

মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানী ছিলেন আফ্রো এশিয়া ল্যাটিন আমেরিকার গণমানুষের মুক্তিদূত। নিপীড়িত মানবাত্মার রোদন ধ্বনি তাঁকে ব্যথিত ও বিক্ষুদ্ধ করতো তাই ফ্যাসিস্ট-সাম্রাজ্যবাদীর রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে নির্ভীক চিত্তে উচ্চারণ করছিলেন ‘খামোশ’। পশ্চিম পাকিস্তানী শাসক ও শোষকচক্রের বৈষম্য, বঞ্চনা আর নির্যাতনের বিরুদ্ধে তিনি রুখে দাঁড়িয়ে তাদেরকে আসসালামু আলাইকুম জানিয়ে দিয়েছিলেন। ভাসানী সবরকম জালেমের প্রবল দাপট আর আগ্রাসনের সামনে লক্ষ মানুষের স্বর নিজের কন্ঠে ধারণ করে পাল্টা ক্ষমতার প্রবল শক্তিতে রুখে দাঁড়াতেন, এক কণ্ঠে জনতার ভেতর থেকে উঠে আসা অসীম শক্তিকে মূর্ত রূপ দিতেন। ক্লান্ত, বিবর্ণ, ক্লিষ্ট মানুষ শুধু নয়, প্রকৃতিকেও প্রাণবন্ত তরতাজা করে তুলতো জালেমের বিরুদ্ধে মজলুমের হুশিয়ারি: ‘খামোশ’ এই উচ্চারণ নিয়ে তিনি ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন, স্বাধীনতা-উত্তরকালে স্বপ্নভঙ্গেরকালে মানুষের হতাশা ও প্রত্যাশার প্রতীক হয়ে উঠেছিলেন, ভারতের শাসক শ্রেণির পরাক্রমের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে ফারাক্কার অভিশাপের বিরুদ্ধে সারাদেশকে নাড়িয়ে দিয়েছে। বর্তমানে লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষায় মওলানা ভাসানীর ‘খামোশ’ উচ্চারণ করা খবই দরকার ছিলো।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব,সীমান্ত, সমুদ্রসীমা রক্ষা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে মওলানা ভাসানীর মত নেতার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। আর সেই প্রয়োজন মিটাতে যাচ্ছেন ড. কামাল হোসেন। যিনি ভিন্ন ভিন্ন মতের মুক্তিকামী সকল মানুষকে একত্রিত গড়ে তুলেছেন জাতীয় ঐক্য। গণতন্ত্র প্রতিষ্টায় দিয়েছেন ঐক্যের ডাক। তার সেই ডাকে দ্বিধাহীনভাবে সাড়া দিয়েছে বাংলার মানুষ। সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে আজ সবাই এক কাতারে। সবার মুখে একই আওয়াজ “নিরাপদ দেশ চাই, গণতান্ত্রিক সরকার চাই” ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ ও নির্বাচনী মিছিলে মুক্তিকামী মানুষের বাঁধভাঙা ডেউ দেখে মনে হয়ে যায় ভাসানীর ফারাক্কার লংমার্চের কথা।

নেতৃবৃন্দের বক্তব্য মনে করিয়ে দেয়ে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের চুম্বক শব্দটি “বাংলার মানুষ মুক্তি চায়, বাংলার মানুষ বাঁচতে চায়”। সত্যিই আজ এই সরকারের জুলুম অত্যাচার থেকে বাংলার মানুষ বাঁচতে চায়। গত কয়েকদিন থেকে বঙ্গবন্ধু ও মাওলানা ভাসানীর আন্দোলনের ইতিহাস পড়ছি আর ভাবছি। আমাদের এমন কোন নেতা কি নেই যিনি জালিমের মুখের উপর ভাসানীর মতো বলবেন খামোশ, চুপ কর। আর মঞ্চে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধুর মতো দিপ্ত কণ্ঠে বলবেন, বাংলার মানুষ মুক্তি চায়, বাংলার মানুষ গণতন্ত্র চায়। যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে ভোট কেন্দ্র পাহারা দিবে। মনে রাখবে রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরো দেবো তবু এদেশে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ।

আজ কিছুটা হলেও আশার সঞ্চার হয়েছে। শহীদ বুদ্ধিজিবীদের কবর জিয়ারত শেষে জামাত প্রসঙ্গ নিয়ে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল সাহেব ভাসানীর মতই বললেন খামোশ, টাকা খেয়ে প্রশ্ন করো? কতো টাকা খেয়েছো? কার কাছ থেকে খেয়েছো? অসহ্য। ড. কামালের এই হুংকার ঐকফ্রন্টের নেতা কর্মীদেরকে আরো উজ্জীবিত করবে। কামাল সাহেব ” খামোশ” বলার মাধ্যমে ক্ষমতাসীনদের কাছে একটি বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন তা হলো, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য একাত্তরে কে কি করেছে তা দেখার বিষয় নয়। এখন কে কি করছে সেটাই দেখার বিষয়। রাজাকারদের বিচার হয়েছে হবে এমরা সেটা নিয়ে কিছু বলছিনা। কিন্তু রাজাকারের দোহাই দিয়ে গণতন্ত্রকামী মানুষের ঐক্যে ফাটল ধরানো যাবেনা। এদেশের সকল শ্রেণী পেশার নাগরিককে নিয়ে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করে ছাড়বোই ইনশাআল্লাহ। জয় বাংলা, জয় ঐক্যফ্রন্ট।

(সুরমানিউজ এর পাঠককলামে প্রকাশিত সব লেখা পাঠক কিংবা লেখকের নিজস্ব মতামত। এই সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় সুরমানিউজ বহন করবে না। সুরমানিউজ এর কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না।)

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!