সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সিলেটে কারা থাকছেন ‘ফাইনাল লড়াইয়ে’?

সুরমা নিউজ:
সিলেটে সংসদীয় আসন রয়েছে ছয়টি। এসব আসনের প্রতিটিতে বিএনপি দুই বা ততোধিক প্রার্থীকে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন দিয়েছে। মনোনয়নপ্রাপ্তদের মধ্যে বাছাইয়ে একজন ছাড়া বাকি সবার মনোনয়নপত্রই বৈধ বলে গৃহিত হয়েছে। এসব প্রার্থীদের মধ্যে এখন শুরু হয়েছে দল বা জোটের চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়ার লড়াই। চূড়ান্ত মনোনয়নপ্রাপ্তরাই আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনের ‘ফাইনাল লড়াইয়ে’ লড়বেন।

বিএনপি ‘কৌশলগত’ কারণে এবার প্রায় সকল আসনেই একাধিক প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়। দলটির শঙ্কা ছিল, একক প্রার্থী দিলে বাছাইকালে অনেকের মনোনয়নপত্র বাতিল ‘করা হতে পারে’। সিলেটের ছয়টি আসনের ক্ষেত্রে বিএনপির এই শঙ্কা বাস্তবে ধরা দেয়নি। এ ছয় আসনে বিএনপি জোট থেকে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করতে মনোনয়ন পেয়েছেন ১৭ নেতা। তন্মধ্যে বিএনপি দলীয় নেতা ১৪ জন, জামায়াতের ২ জন এবং ইসলামী ঐক্যজোটের একজন।

জামায়াত ও ইসলামী ঐক্যজোট একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়নপ্রাপ্ত এই ১৭ নেতাদের মধ্যে সিলেট-৩ আসনে যুবদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল বলে ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। তবে মনোনয়ন বৈধ করতে তিনি আপিল করেছেন।

ধানের শীষ প্রতীকের বাকি ১৬ নেতাদের মধ্যে রয়েছেন সিলেট-১ আসনে ইনাম আহমদ চৌধুরী ও খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, সিলেট-২ আসনে তাহসিনা রুশদীর লুনা ও আবরার ইলিয়াস অর্ণব, সিলেট-৩ আসনে এম এ হক, শফি আহমদ চৌধুরী ও ব্যারিস্টার এম এ সালাম, সিলেট-৪ আসনে দিলদার হোসেন সেলিম ও সামছুজ্জামান জামান, সিলেট-৫ আসনে মামুনুর রশীদ মামুন, শরীফ আহমদ লস্কর ও মাওলানা ফরিদ উদ্দিন (জামায়াত) এবং সিলেট-৬ আসনে ফয়সল আহমদ চৌধুরী, হেলাল খান, মাওলানা আব্দুর রকিব (ইসলামী ঐক্যজোট) ও মাওলানা হাবিবুর রহমান (জামায়াত)।

এসব নেতাদের মধ্যে এখন চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়ার লড়াই শুরু হয়েছে। আগামী ৯ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনের আগে বিএনপি জোট তাদের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা নির্বাচন কমিশনে জমা দেবে। সে তালিকায় যাদের নাম থাকবে, তারা বাদে বাকিদের মনোনয়নপত্র তৎক্ষণাত বাতিল হয়ে যাবে। এজন্য সিলেটের এসব নেতারা চূড়ান্ত তালিকায় নাম লেখাতে মরিয়া। তারা দল ও জোটের শীর্ষ নেতাদের কাছে লবিংও করছেন বলে জানা গেছে।

তবে সিলেট-২ আসনে বিএনপির মনোনয়ন পাওয়া ‘নিখোঁজ’ ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনাই চূড়ান্ত লড়াইয়ে থাকবেন, এটা প্রায় নিশ্চিত। কেননা, এ আসনে অপর মনোনয়নপ্রাপ্ত আবরার ইলিয়াস অর্ণব মূলত তার মা লুনার মনোনয়নপত্র বাতিল হতে পারে এমন শঙ্কাতেই মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। ফলে এ আসনটি ছাড়া বাকি পাঁচটি আসনেই চূড়ান্ত মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতাদের মধ্যে ঠান্ডা লড়াই বিরাজ করছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার জানিয়েছেন, দু-একদিনের মধ্যে বিএনপি জোটের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে।

এ প্রসঙ্গে সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল বলেন, ‘কৌশলগত কারণে একাধিক প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল। এখন দলের কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে চূড়ান্ত তালিকা ইসিতে জমা দেয়া হবে। তালিকায় যারা বাদ পড়বেন, তারা মনোনয়নপ্রাত্ত প্রার্থীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!