শুক্রবার, ২৪ মে, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
বাংলাদেশকে ৯৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কা মনে হচ্ছে বুলবুলের  » «   র‌্যাব-চোরাচালানি সংঘর্ষ, আটকদের ছাড়াতে সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ !  » «   সিলেটে এবার সুবিধাবঞ্চিতদের ‘দুই টাকায় ঈদের খুশি’  » «   যেখানেই প্রতিবন্ধকতা সেখানেই ডিসি ফয়সাল, খুশি সিলেটের মানুষ  » «   যেসব চ্যানেলে দেখা যাবে বিশ্বকাপের ম্যাচ  » «   ঈদের বাজারে ‘পরকীয়া’, দাম ১৪,৭০০ টাকা  » «   নবীগঞ্জে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা  » «   সিলেটে উদ্বোধনের আগেই আড়াই কোটি টাকার ব্রিজে ফাটল  » «   যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   ব্রিটেনের কার্ডিফে শহীদ মিনার নির্মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৬৬ হাজার পাউন্ড দান  » «  

বিটিভিতে ‘ইত্যাদি’ আজ : দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে সুনামগঞ্জের

সুরমা নিউজ ডেস্ক :
এবারের ‘ইত্যাদি’র দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে সিলেটের সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাটে। এ পর্বটি দেখানো হবে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে আজ রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। অনুষ্ঠানটি পুনঃপ্রচার করা হবে আগামী ২ ডিসেম্বর রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পর।

এবারের পর্বে আছে সুনামগঞ্জের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। দেওয়ান হাসন রাজা, রাধারমণ দত্ত, দুর্বিন শাহ, শাহ আবদুল করিমসহ আরও বহু মনীষীর ওপর আছে তথ্যভিত্তিক অনুসন্ধানী আয়োজন। আছে মাইনুল মাজেদিনের ঘড়ি সংগ্রহের ওপর একটি প্রতিবেদন। জার্মানপ্রবাসী শৌখিন দৌড়বিদ বাংলাদেশের নবাবগঞ্জের শিবশংকর পালের ওপর রয়েছে আরেকটি অনুপ্রেরণামূলক আয়োজন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য তিনি সরাসরি নিউইয়র্ক থেকে টেকেরঘাটে এসেছেন।

এবারের ‘ইত্যাদি’তে মূল গান আছে একটি। হাসন রাজা, রাধারমণ দত্ত, দুর্বিন শাহ ও শাহ আবদুল করিমের লেখা চারটি গানের অংশ মিলিয়ে তৈরি হয়েছে একটি গান। গানটি গেয়েছেন সিলেটেরই শিল্পী শুভ্র দেব, সেলিম চৌধুরী ও সহশিল্পীবৃন্দ। সুনামগঞ্জকে নিয়ে মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের কথায়, হানিফ সংকেতের সুরে ও মেহেদীর সংগীতায়োজনে একটি গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেছেন টেকেরঘাটেরই স্থানীয় নৃত্যশিল্পীরা। এ ছাড়া থাকবে নিয়মিত আয়োজনগুলো।

‘ইত্যাদি’র রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। ইত্যাদি স্পনসর করেছে কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড।

সাধারণত রাতের বেলা ‘ইত্যাদি’র দৃশ্য ধারণ করা হয়। কিন্তু এবারের পর্বটির দৃশ্য ধারণ করা হয় দিনের বেলা। উদ্দেশ্য ছিল সুনামগঞ্জের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তুলে আনা। বাংলাদেশের যে স্থানে সাধারণত দৃশ্য ধারণ করা হয়, সে স্থানটির বৈশিষ্ট্যকে কেন্দ্র করেই সেট নির্মাণ করা হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!