শুক্রবার, ২৪ মে, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
বাংলাদেশকে ৯৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী শ্রীলঙ্কা মনে হচ্ছে বুলবুলের  » «   র‌্যাব-চোরাচালানি সংঘর্ষ, আটকদের ছাড়াতে সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ !  » «   সিলেটে এবার সুবিধাবঞ্চিতদের ‘দুই টাকায় ঈদের খুশি’  » «   যেখানেই প্রতিবন্ধকতা সেখানেই ডিসি ফয়সাল, খুশি সিলেটের মানুষ  » «   যেসব চ্যানেলে দেখা যাবে বিশ্বকাপের ম্যাচ  » «   ঈদের বাজারে ‘পরকীয়া’, দাম ১৪,৭০০ টাকা  » «   নবীগঞ্জে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা  » «   সিলেটে উদ্বোধনের আগেই আড়াই কোটি টাকার ব্রিজে ফাটল  » «   যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   ব্রিটেনের কার্ডিফে শহীদ মিনার নির্মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৬৬ হাজার পাউন্ড দান  » «  

নির্বাচনে প্রার্থীতা নিয়ে প্রতিনিয়ত অর্থমন্ত্রীর ধোঁয়াশা

সুরমা নিউজ ডেস্ক:
আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে নিজের প্রার্থীতা নিয়ে প্রতিনিয়ত ধোঁয়াশা সৃষ্টি করে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। দলের হাইকমান্ড তার প্রার্থীতার বিষয়ে নিশ্চয়তা দিলেও তিনি নিজেকে ‘ডামি’ প্রার্থী বলে জানান দিচ্ছেন। মনোনয়ন ফরম কেনার আগে, কেনার সময় এবং সর্বশেষ মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার পরও বলছেন তিনি নির্বাচনে অংশ নেবেন না।

নির্বাচনের শেষ মূহুর্তে এসে তিনি নিজেই আবার দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ ও জমা দিলে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি সিলেট-১ আসনে দলীয় নেতাকর্মীরা প্রথম দিকে তার মনোনয়ন নিয়ে নিশ্চিত হলেও নির্বাচনের শেষপ্রান্তে এসে ধাঁধাঁয় পড়েছেন।

সিটি কর্পোরেশন ও সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি গত এক দশক ধরে প্রতিনিধিত্ব করছেন। এই এক দশক তিনি সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদ অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে বেশ সফল। গত কয়েক বছর ধরে তিনি অবসরে যাওয়ার কথা বলে আসছেন। তার স্থলাভিষিক্ত হতে এই আসনে তৎপরতা দেখাচ্ছেন সহোদর ড. এ কে এ মোমেন। অর্থমন্ত্রী নিজেও ভাইয়ের প্রার্থীতার ব্যাপারে অনেকটা খোলামেলা কথা বলেছেন। মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার পরও বলছেন, এ আসন থেকে তার ভাই মনোনয়ন পাচ্ছেন, তবে এটি চূড়ান্ত নয়।

সর্বশেষ মঙ্গলবার (১৩ নভেম্বর) অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানিয়েছেন, ‘আমি নমিনেশন পেপার পার্টিতে সাবমিট করেছি অ্যাজ এ ডামি ক্যান্ডিডেট, কারণ আমি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব না।’

তিনি প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার অনুমতি নিয়েই প্রার্থীতা নিয়ে এরকম করছেন জানিয়ে বলেন, ‘আমি যা করছি প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়েই করছি। আমাদের দেশে মুশকিল যেটা হয়, নোবডি ওয়ান্টস টু রিজাইন। আমি অবসরের রীতি চালু করতে চাই। সবারই একসঙ্গে অবসরে যাওয়া দরকার। রাজনীতিবিদদের অবশ্যই অবসরে যেতে হবে। আমার আসন থেকে মনে হচ্ছে আমার ভাই, এখনো নমিনেশন হয়নি।’

সিলেট-১ আসনে অর্থমন্ত্রীর প্রার্থীতা জেনে সেখান থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন সাবেক গভর্নর ড. ফরাসউদ্দিন। তিনি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন হবিগঞ্জ-৪ আসনের। দলের নির্দেশনায় সবকিছু এগোতে থাকলেও নিজের প্রার্থীতা নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে। তার বক্তব্যের ধোঁয়াশা কাটাতে অপেক্ষা করতে হবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালিকা ঘোষণার শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!