শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ওসমানীনগর মিনি স্টেডিয়াম : প্রাসঙ্গিকতা,সমস্যা এবং সম্ভবনা

সারওয়ার চৌধুরী:

বাংলাদেশ হচ্ছে কৃষি প্রধান দেশ, কৃষি হচ্ছে বেশীরভাগ মানুষের আয়ের অন্যতম উৎস ! তাছাড়াও আছে শিল্প পর্যটন সহ আরও বিভিন্ন মাধ্যম ৷ এরকম প্রত্যেক সেক্টরকে যদি পরিকল্পনার আলোকে প্রসারিত করা হয় তবে দেশে বিদেশে প্রচুর কর্ম সংস্হানের সুযোগ রয়েছে ৷ আমার কাছে মনেহয় ঐ সম্ভবনাময় সকল সেক্টরের পাশাপাশি যদি ক্রীড়াক্ষেত্রকেও গভীর চিন্তা ভাবনার সাথে বাস্তব সম্মতভাবে পরিকল্পনার আলোকে সাজানো হয় তবে এখানেও রয়েছে কর্মসংস্হানের অপার সম্ভবনা, কেননা আমাদের যুব সমাজ খেলাধুলার প্রতি খুবই উৎসাহী এবং আন্তরিক ! সুতরাং সরকারের পাশাপাশি আমদেরকেও সম্মিলিতভাবে যার যার অবস্হান থেকে সাধ্যমত ক্রীড়ান্নোয়নে অবদান রাখার চেষ্টা করা উচিত ৷

সেই রকম একটা প্রচেষ্টার প্রেক্ষাপটে গত বছর যখন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী শ্রী বীরেন শিকদার নিউ ইয়র্কে এসেছিলেন তখন আমি বর্তমান সরকারের প্রতিশ্রুত প্রতিটি উপজেলায় একটা মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের কথা উল্ল্যেখ করে আমাদের প্রিয় ওসমানীনগরে একটা মিনি স্টেডিয়ামের প্রয়োজনের কথা তুলে ধরি ! মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে ওসমানীনগরে স্টেডিয়াম নির্মাণে সহযোগীতা করার কথা ব্যক্ত করেন ৷ পরবর্তীতে আমি যখন বাংলাদেশে যাই তখনও উনার মন্ত্রণালয়ে সৌজন্য সাক্ষাত করতে গিয়ে মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের কথা স্বরণ করিয়ে দিলে আবারও উনি উনার স্বদিচ্ছার কথা পুনর্ব্যক্ত করেন ৷ এ পর্যায়ে আমার সাথে ছিলেন আমাদের বালাগন্জ ওসমানীনগরের সর্বজন প্রিয় ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব, বিশিষ্ট ধারা ভাষ্যকার স্নেহভাজন জুয়েল আহমদ নুর ৷

যে কোন বৃহত্তর কল্যাণ কাজ কারও একার পক্ষে করা অনেক সময় দুঃসাধ্য,প্রয়োজন সবার আন্তরিকতা এবং সতস্ফুর্ত সহযোগীতা ! আমি ওসমানীনগরের প্রায় সকল স্হানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে এ ব্যাপারে এগিয়ে আসার জন্যে আহবান জানিয়েছি এবং এখনও জানাচ্ছি ৷ এটা অপ্রিয় হলেও বাস্তব সত্য যে বাংলাদেশে রাজনীতি বহির্ভুত ব্যাক্তিদের মাধ্যমে বৃহত্তর সমাজ কল্যাণ সংশ্লিষ্ট কোন কিছুর বাস্তবায়ন ঘটানো শুধু দুঃসাধ্যই নয় বরং অসম্ভব ৷ সুতরাং সবাই আমার সাথে একমত হবেন যে এই ধরনের কার্যক্রমকে সফল করতে হলে প্রয়োজন প্রশাসনের পাশাপাশি স্হানীয় জনগণ বিশেষ করে রাজনীতিবিদদের অগ্রণী ভুমিকা ৷

একটা বিষয় আমাকে সব সময় পীড়া দেয় যে, আমাদের রাজনীতিবিদরা যথাযথ মুল্যায়ণ ছাড়া সহজ সরল উদ্যমী যুব সমাজকে রাজনীতির দোহাই দিয়ে নিজ স্বার্থে ব্যবহার করেন ! অথচ পর্যাপ্ত সুযোগ থাকা স্বত্তেও তাদের জন্যে নিজের সাধ্যানুযায়ী কোন কর্ম পরিকল্পনা না করা, তাদেরকে সাবলম্ভী হওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি না করা সত্যিই হতাশাজনক ৷ আমাদের যারা দায়িত্বশীল আছেন , যাদেরকে জনগন ভোটের মাধ্যমে দায়িত্ব দিয়েছে সেইসব দায়িত্বশীল ব্যাক্তিবর্গ বিশেষ করে স্হানীয় সংসদ সদস্য উপজেলা চেয়ারম্যান কিংবা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহোদয়গন কেন জানি এই বিষয়ে নীরব আছেন ! আমরা প্রবাসীরা ইচ্ছে করলেই সবকিছু করতে পারিনা কেননা বাংলাদেশের চলমান প্রেক্ষাপটে বাস্তবতা হল যেকোন উন্নয়ন কর্মকান্ডের অন্যতম অলিখিত পূর্ব শর্ত হচ্ছে ঐ বিষয়ে সরাসরি সময় দেওয়ার পাশাপাশি শক্তিশালী রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা ৷

ক্রীড়াঙ্গনে আমাদের ওসমানীনগরের প্রচুর সম্ভবনা রয়েছে , জেলা জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যার অসংখ্য প্রমাণ আমরা পেয়েছি ! এত অবহেলা আর অব্যবস্হার মধ্যেও তাদের নৈপুণ্য প্রশংসার দাবী রাখে ৷ তাই স্হানীয় সংসদ সদস্য এবং নেতৃত্ব দানকারী স্হানীয় রাজনীতিবিদদের প্রতি আমরা সাধারন মানুষের আকুতি থাকবে আপনারা আমাদের অবহেলিত এই ভবিষ্যত প্রজন্মের প্রতি সুনজর পূর্বক সম্ভবনাময় ক্রীড়াক্ষেত্রকে এগিয়ে নিতে ভুমিকা নেবেন এবং মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের ক্ষেত্রে বিরাজমান সকল প্রতিবন্ধকতা দুর করতে সকলে সম্মিলিত ভাবে এগিয়ে আসবেন ৷

লেখার প্রারম্ভেই আমি বলেছি বর্তমান প্রেক্ষাপটে ক্রীড়া একটি সম্ভবনাময় ক্ষেত্র যেখানে প্রচুর কর্ম সংস্হানের ব্যবস্হা সহ যুব সমাজের জন্যে সৃষ্টিশীল বিষয়ে অবদান রাখার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে ৷ 

তাই আমাদের স্হানীয় সংসদ সদস্য উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের প্রতি উদাত্ত আহবান থাকবে সবাই আন্তরিক হলে স্টেডিয়াম নির্মাণের কাজটা খুব দুরূহ কিংবা অসম্ভব কিছু নয় ! সুতরাং যুব সমাজকে শুধুমাত্র ব্যক্তিগত রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার না করে তাদের প্রতিভা বিকাশের সুযোগ করে দিন ! চিন্তা ভাবনা করুন কিভাবে বাস্তব সম্মত উপায়ে তাদের কর্মের ব্যবস্হা করা যায় ৷ একটা মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের সকল স্হানীয় জটিলতা আপনারা নিরসন করুন , তাহলে দেখা যাবে প্রবাসী অধ্যুষিত আমাদের প্রিয় ওসমানীনগরে খেলাধুলা আয়োজনের ক্ষেত্রে আর্থিক বিষয়টা মুখ্য হবেনা , অনেকেই এগিয়ে আসবেন ৷ আর এভাবে সবার সহযোগিতা নিয়ে পরবর্তীতে যদি আমরা একটা আধুনিক ক্রীড়া কমপ্লেক্স নির্মাণ করতে পারি তাহলে ওসমানীনগরের যুব সমাজ অবশ্যই আমাদের মুখ উজ্জ্বল করার পাশাপাশি জাতীয় ক্রীড়াক্ষেত্রে অবদান রাখবে এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়েও বাংলাদেশের ক্রীড়াশক্তির ব্যাপ্তি ঘটবে ৷

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
575Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!