বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে ঐতিহ্যবাহী পলো বাওয়া উৎসব

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :
গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যের একটি অংশ পলো বাওয়া উৎসব । আগেকার দিনে বছরে একবার এই উৎসবটি পালন করতেন হাওর পাড়ের লোকজন। উৎসবের সপ্তাহ খানেক পূর্বে গ্রামে-গঞ্জে তৈলের টিনে ডাক-ঢোল বাজিয়ে জানিয়ে দেয়া হতো উৎসবের দিন-ক্ষণ। এমন খবর জানার পর লোকজন পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে বাজার থেকে নতুন পলো ক্রয় করতেন। কালের বিবর্তনে এই ঐতিহ্য এখন হারিয়ে যেতে বসেছে। তবে কিছু কিছু এলাকায় এখনো পলো বাওয়া উৎসব হয়ে থাকে।

প্রতি বছরের মতো আজ রোববার (১৪ জানুয়ারি) সিলেটের বিশ্বনাথের দৌলতপুর ইউনিয়নের গোয়াহরি গ্রামের দক্ষিণের বিলে (বড়বিলে) উৎসবমূখর পরিবেশে পলো দিয়ে মাছ ধরতে নামেন এলাকাবাসী। পূর্ব ঘোষিত এই উৎসবকে ঘিরে এলাকাবাসী আনন্দ উপভোগ করেন।

রবিবার সকাল থেকে লোকজন পলো’সহ মাছ ধরার বিভিন্ন যন্ত্র নিয়ে বিলের পাড়ে সমবেত হতে থাকেন। দুপুরে ১২টায় প্রবাসীসহ এক সাথে গ্রামের শত শত লোকজন পলো নিয়ে বিলের পানিতে ঝাপিয়ে পড়েন। এসময় উৎসবটি উপভোগ করতে গ্রামের পুরুষ, মহিলা, শিশু, কিশোর, কিশোরী ও প্রবাসী শিশুরাসহ সবাই বিলের পাড়ে উল্লাস করেন।

বিলের পাড়ে উৎসব উপভোগকারী গ্রামের মকবুল আলী (৯৫) নামের এক বৃদ্ধ বলেন- প্রায় দেড়শত বছর ধরে এই উৎসবটি পালন করে আসছেন এলাকাবাসী। এর ধারাবাহিকতা রক্ষায় এলাকাবাসী প্রতিবছর এই উৎসবের আয়োজন করে আসছেন। আগামীতেও তা অব্যাহত থাকবে বলে আশা ব্যক্ত করেন এই প্রবীণ ব্যক্তি তিনি।
ওই উৎসবে পলো দিয়ে প্রবাসীসহ গ্রামের তজমুল আলী, আব্দুল আহাদ, আব্দুল কাহার, মিজানুল করিম, হানিফ উল্লা, মতিউর রহমান, জমির আলী, আসাদ আহমদ, কয়েছ আলী, আইন উদ্দিন, লিমন মিয়া, সুরত আলী, আব্দুল আহাদ, মরতুজ আলী, আমিনুল ইসলাম, ফারুক আলী, সাইদুর রহমান, ফয়জুর রহমান, মুহিবুর রহমান ও ওয়াহিদুর রহমানসহ গ্রামের অনেকেই রুই, রাঙ্গা কারপু, বোয়াল, শউল ও মাগুর মাছসহ হরেক রকমের মাছ ধরেছেন।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ