বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

শ্রীমঙ্গলে মাছের মেলায় মানুষের ঢল


তোফায়েল আহমদ পাপ্পু, শ্রীমঙ্গল :
প্রতিবছরের মতো এবারও শ্রীমঙ্গল নতুন বাজারে দিনব্যাপী ঐতিহ্যবাহী মাছের মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিবছর পৌষ সংক্রান্তি উপলক্ষে এই মেলার আয়োজন করা হয়।

শনিবার সকাল থেকেই মাছ মেলায় হাজার হাজার মানুষের ঢল নামে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রচুর লোক ভীড় জমিয়েছেন মাছ দেখতে। একদিনের জন্য বসলেও মেলা চলবে রবিবার দুপুর পর্যন্ত। মেলায় বোয়াল, বাঘ আইড়, চিতল, গজার, রুই, কাতল, ঘাগটসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ প্রদর্শনী ও বিক্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও পাপদা, বড় বাইম, চাপিলা, চান্দা মাছও উঠেছে ব্যাপক হারে। মেলার প্রধান আকর্ষণ মাছ হলেও এতে কৃষিজ উপকরণ, নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য পণ্য ও শিশুদের খেলনার দোকানও রয়েছে প্রচুর।


মেলায় সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, প্রায় ৩শতাধিক মাছ বিক্রেতা অংশ নিয়েছেন শ্রীমঙ্গলস্থ নতুন বাজারে মাছের মেলায়। বড় বড় মাছের সাথে অনেকে দেশীয় নানা প্রজাতির ছোট মাছও নিয়ে এসেছেন বিক্রেতারা। বেচাকেনাও চলছে সমান তালে। প্রত্যেকটি দোকানের সামনে ক্রেতা ও দর্শনার্থীর উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। অনেকে পরিবার পরিজন নিয়ে এসেছেন মেলায়। মাছ ছাড়াও তারা মেলায় উঠা হরেক রকমের দোকানে ভিড় জমাচ্ছেন। বিভিন্ন ধরণের খাবার আর শিশুদের জন্য খেলনা আর নারীদের জন্য বিভিন্ন প্রসাধনীসহ সাজগোজের জিনিসপত্র কিনছেন।

ব্যবসায়ী মনসুর আলী জানান, বিভিন্ন নদী ও হাওর থেকে মাছ আসে এখানে। এ মেলাকে লক্ষ্য করে চলে মাছ ধরার উৎসব। তিনি বলেন, আমি প্রতিবছরই এ মেলায় মাছ নিয়ে আসি। বাজারের তুলনায় মেলায় মাছের দাম বেশি হলেও সবাই আনন্দের সাথে মাছ কিনেন।


মেলায় ঘুরতে আসা নিজাম চৌধুরী জানান, এখানে শুধু মাছ কেনাটাই বড় কথা নয়। বাপ-দাদার মুখে বড় বড় মাছের গল্প শোনা ছাড়া দেখা হয়নি।  এখানে এসে বড় বড় মাছ নিজ চোখে প্রত্যক্ষ করতে। মাছগুলো দেখে চোখ জুড়িয়ে নিলাম। তিনি বলেন, মাঝে মধ্যে তাদের গল্পগুলো অবিশ্বাস্য মনে হতো। কিন্তু এখানে এসে সেই ভুলও ভেঙ্গে গেছে।

স্থানীয়রা জানান এই মেলাকে ঘিরে এলাকায় উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। প্রতিবছরের মতো এ বছরও মেলা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ