বুধবার, ২০ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
বন্যার্তদের পাশে দাড়াতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী  » «   উন্নয়নের আলোকচিত্রে ঠাসা সিলেটের অলিগলি  » «   সিলেটসহ তিন সিটিতে বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিতরণ কাল  » «   কোম্পানীগঞ্জ থানার সাবেক ওসি কারাগারে  » «   ওসমানীনগরে ভাসমান লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় সিলেটের ২জন নিহত  » «   সিলেটে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে বন্যা পরিস্থিতি  » «   সুনাই’র দু-কুল ছাপিয়ে লোকালয়ে পানি : বিয়ানীবাজারে প্রতিদিনই নতুন এলাকা প্লাবিত  » «   বিয়ানীবাজারের বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ করলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «   সিলেটে খালেদা জিয়ার চাইতে এরশাদ সাহেব বেশী জনপ্রিয় : অর্থমন্ত্রী  » «  

দাবি আদায় না করে ঘরে ফিরবেন না শিক্ষকরা

সুরমা নিউজ ডেস্ক :
জাতীয়করণের দাবিতে এই প্রচণ্ড শীতেও অনশন করে টিকে রয়েছি। মরে যাব তবুও নিজেদের অধিকার আদায় করেই ঘরে ফিরব। হাতে স্যালাইন নিয়ে টানা ৫ দিন ধরে অনশনে থাকা শিক্ষক মো. আক্তারুজ্জামান এসব কথা বলেন।

অনশনে থাকা এই শিক্ষকের আক্ষেপ, কেন সরকারের তরফ থেকে মেডিকেল সাপোর্ট দেওয়া হচ্ছে না, তাহলে চিকিৎসা সেবায় কিভাবে দেশ এগিয়ে গেলো, এখনো কেউ মানবিক হতে পারল না কেন?

মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণের দাবিতে পঞ্চম দিনের মতো আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষকরা। এখন পর্যন্ত ১২৫ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

এদিকে, অনশন চালিয়ে যাওয়া ছাড়া বিকল্প কিছু ভাবছেন না শিক্ষকরা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. রুহুল আমিন বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর কাছ থেকে অনেক প্রতিশ্রুতি পেয়েছি। তার কথায় আমাদের আস্থা নেই। প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে যেকোনো ঘোষণা আসলে অনশন থেকে সরে দাঁড়াব। এর বাইরে আর কিছু না।

১ জানুয়ারি থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত অবস্থান ধর্মঘট পালনের পরও শিক্ষকদের দাবি না মানায় ৯ জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষকরা।

অনশনে থাকা শিক্ষকরা জানান, ১৯৯৪ সালে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণ করা হয় ৫’শ টাকা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি ৫ম শ্রেণির কার্যক্রম একই হলেও ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে সরকার। এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি মাসে ২২ থেকে ৩০ হাজার টাকা বেতন হলেও ১ হাজার ৫১৯টি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসার শিক্ষকরা সরকারের থেকে কোনো বেতন পাচ্ছেন না।

যতদিন সরকারের তরফ থেকে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণ না করা হবে, ততদিন রাস্তায় অনশনে থাকবেন শিক্ষকরা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!