রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

তাঁরা মৃত্যুর অনুমতি চাইছেন!

সুরমা নিউজ ডেস্ক :
নিঃসন্তান নারায়ণ লাবেতের বয়স ৮৬ বছর। তাঁর স্ত্রী ইরাবতী লাবেতের বয়স ৮০ ছুঁই ছুঁই।  বৃদ্ধ হয়ে যাওয়ায় সমাজের কোনো কাজে আসছেন না মুম্বাইয়ের এ দম্পতি! এই কারণ দেখিয়ে ভারতের রাষ্ট্রপতির কাছে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি চেয়েছেন চিঠিও পাঠিয়েছেন তাঁরা।

রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের কাছে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি চেয়ে চিঠি লিখেছেন নারায়ণ ও ইরাবতী লাবেতে। চিঠিতে নারায়ণ লিখেছেন, তাঁদের কোনো সন্তান নেই। বর্তমানে কোনো শারীরিক সমস্যাতেও তাঁরা ভুগছেন না। কিন্তু সমাজের আর কোনো অবদান রাখতে না পারায় তাদের বেঁচে থাকতে ইচ্ছে করছে না।

রাষ্ট্রপতির উদ্দেশে লেখা চিঠিতে নারায়ণ লিখেছেন, ‘এখন এই সমাজে আমাদের কোনো উপযোগিতা নেই এবং আমরা কোনো অবদান রাখতে পারছি না।’ তিনি আরও লিখেছেন, ভারতের সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির মৃত্যুদণ্ডাদেশ থেকে রেহাই দেওয়ার এখতিয়ার আছে। সুতরাং ‘মৃত্যুর অনুমতি’ দেওয়ার ক্ষমতাও তাঁর থাকার কথা।

মহারাষ্ট্র স্টেট ট্রান্সপোর্ট করর্পোরেশনের সরকারি চাকরি থেকে ১৯৮৯ সালে অবসর নেন নারায়ণ লাবেতে। তাঁর স্ত্রী ইরাবতীর বয়স এখন ৭৯ বছর। মুম্বাইয়ের একটি হাইস্কুলের অধ্যক্ষ ছিলেন তিনি। ইরাবতী সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘এই বয়সে আমরা স্রেফ বেঁচে থাকার জন্য জীবিত থাকতে চাই না। আমাদের জীবনে কোনো সমস্যা নেই, কিন্তু তারপরও আমরা আর বেঁচে থাকতে চাইছি না।’

লাবেতে দম্পতি জানিয়েছেন, সচেতনভাবেই ইচ্ছামৃত্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। হিন্দুস্তান টাইমসকে ইরাবতী বলেছেন, বিয়ের পরপরই সন্তান গ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন দুজনে মিলে। এখন বয়সের কারণে যদি তাঁরা অসুস্থ হয়ে পড়েন, তবে সেই অসুস্থতার দায় কারও ঘাড়ে চাপাতে চান না।

স্বেচ্ছামৃত্যু নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নানা ধরনের আইন চালু আছে। সাধারণত অসুস্থতার কারণে জীবনসংকটে থাকা রোগীদের পশ্চিমের বিভিন্ন দেশে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু এ নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। ভারতের সুপ্রিম কোর্ট গত বছরের অক্টোবরে এক পর্যবেক্ষণে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে পরোক্ষ স্বেচ্ছামৃত্যুর স্বীকৃতি দেওয়া হতে পারে। তবে আদালত বলেছিলেন, কোনো রোগী যদি অত্যন্ত সংকটাপন্ন বা অপরিবর্তনীয় কোমায় চলে যায়, সে ক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসকের সনদ পাওয়া সাপেক্ষে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি দেওয়া যেতে পারে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!