সোমবার, ২৫ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এক ছাদের নিচে দুই ভুবনের বাসিন্দারা

বিনোদন ডেস্ক :
অবশেষে ইতালির মিলানে ১১ ডিসেম্বর গাঁটছড়া বাঁধলেন ক্রিকেট তারকা বিরাট আর বলিউড তারকা আনুশকা। ক্রিকেট তারকা ও বলিউড তারকা এই দুই ভুবনের বাসিন্দাদের মেলানোর গল্প এই প্রতিবেদনে।

মনসুর আলী খান-শর্মিলা ঠাকুর
মূলত তাদের প্রেম দিয়েই শুরু হয় ভারতীয় ক্রিকেট ও বলিউডের কাছে আসার গল্প। ধর্মীয় বাধা উপেক্ষা করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন তারা। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে কনিষ্ঠ টেস্ট অধিনায়ক মনসুর আলী খান পাতৌদি প্রেমে পড়েন বলিউড অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরের। বলিউড কিংবা টালিউড, একসময়ের সাড়া জাগানো নায়িকা ছিলেন শর্মিলা ঠাকুর।
আর নবাব পরিবারের ছেলে মনসুর আলী খান পতৌদি ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। বলিউডের ‘রাজকন্যা’ আর ক্রিকেটের ‘রাজকুমার’-এর বিয়ে হয় ১৯৬৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর। শর্মিলার মন পেতে চার বছর লেগেছিল মনসুরের। গোলাপ, প্রেমপত্র এমনকি ফ্রিজ উপহার দিয়ে পটাতে হয়েছে শর্মিলাকে। মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে শর্মিলার বাবা-মা ভেবেছিলেন, এত নামি বংশের ছেলের সঙ্গে বিয়েটা হয়তো টিকবে না। সেই সঙ্গে আবার দুজন ভিন্ন ধর্মের। কিন্তু না, তাদের ভালোবাসা আজ পর্যন্ত দৃষ্টান্ত হয়ে আছে। তাদের প্রেমের ফসল হিসেবে বলিউড পায় সাইফ আলী খান ও সোহা আলী খানের মতো বলিউড তারকাদের।

আজহার উদ্দিন-সঙ্গীতা বিজলানি
১৯৯৬ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন প্রেমে পড়েন বলিউডে সদ্য পা রাখা সঙ্গীতা বিজলানির। বিজলানির প্রেমে এতটাই মত্ত হয়ে যান আজহার যে নিজের প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে বিজলানির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। বিবাহিত থাকা সত্তে¡ও ১৯৯৪ সালের দিকে গুঞ্জন উঠেছিল ক্রিকেট অধিনায়ক আজহারউদ্দিন নাকি প্রেম করছেন মডেল ও অভিনেত্রী সঙ্গীতা বিজলানির সঙ্গে। এক বিজ্ঞাপনের শুটিং করতে গিয়ে পরিচয় হয়েছিল তাদের।
পরে সত্যি সত্যিই ১৯৯৬ সালে প্রথম স্ত্রী নওরিনকে তালাক দিয়ে সঙ্গীতাকে বিয়ে করেন আজহার। কিন্তু ভালোবাসার ঘর টেকেনি তারকা দম্পতির। ২০১০ সালে তালাক হয় আজহার-সঙ্গীতার। আজহারের জীবন ও প্রেম নিয়ে বায়েপিক পর্যন্ত হয়েছে। যাতে আজহারের চরিত্রে ইমরান হাশমি এবং বিজলানির চরিত্রে নারগি ফকরি অভিনয় করেন।

গীতা বসরা-হরভজন সিং
অনেকদিন ধরেই নিজেদের ভালো বন্ধু হিসেবে দাবি করে আসছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের স্পিনার হরভজন সিং ও বলিউড অভিনেত্রী গীতা বর্ষা। হঠাৎ সবাইকে চমকে দিয়ে ২০১৫ সালের অক্টোবরে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন দুজন। সম্প্রতি এই তারকা জুটির ঘর আলো করে জন্ম নিয়েছে একটি কন্যা সন্তান। যার নাম রাখা হয়েছে হিনায়া। সালটা ছিল ২০১৫। পাঞ্জাবের জলন্দরে ধুমধাম করে পাঞ্জাবি রীতিতে বিয়ে করেন হরভজন সিং এবং গীতা বসরা। হরভজন প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়েছিলেন গীতার। তিনি বলেছেন, ‘আমি যখন লন্ডনে কাউন্টি ক্রিকেট খেলছিলাম, ওকে তখন ‘ও আজনাবি’ গানে দেখেছিলাম। আমি আমার বন্ধুকে বলি, আমি এই মেয়েটার সঙ্গে দেখা করতে চাই।’ সাউথ আফ্রিকায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার পর হরভজন গীতাকে কফি খেতে দেখা করতে বলেন। তারপরই শুরু যার শেষ হয় ছাদনাতলায়।

যুবরাজ সিং-হাজেল কিচ
২০১৬ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক যুবরাজ সিং ও মডেল ও অভিনেত্রী হোজেল কিচ। শুধু তাই নয় বিরাট আনুশকার সম্পর্কে ফাটল ধরলে তা মেরামতের দায়িত্বও কাঁধে তুলে নেন তারা। যুবরাজ সিংহের প্রেমিকার তালিকাটা একেবারে ছোট নয়। বলিউড অভিনেত্রীদের সঙ্গেই তার প্রেমের গুজব ছড়িয়েছিল বেশ।
কিম শর্মা, প্রীতি জিনতা এমনকি দীপিকা পাড়ুকোনও আছেন এই তালিকায়। শেষমেশ ঘোষণা দিয়ে নিজের উইকেটের পতন ঘটান যুবরাজ। গত বছর যুবরাজ বিয়ে করেন হজেল কিচকে।

জহির খান-সাগরিকা ঘাটগে
যুবরাজ ও হেজেলের বিয়েতে প্রথম একসঙ্গে দেখা যায় সাবেক ক্রিকেটার জহির ও অভিনেত্রী সাগরিকা ঘাটগের। তখন থেকেই কানাঘুষা চলছিল, তাদের মধ্যে হয়তো প্রেম আছে। কথাটা সত্য হলো। গত ২৩ নভেম্বর বিয়ের কাজটা সেরে ফেলেছেন পেসার জহির আর ‘চাক দে ইন্ডিয়া’ ছবির অভিনেত্রী সাগরিকা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!