বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সাবধান! বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে নকল ওষুধ

সুরমা নিউজ :
চোরাপথে বাংলাদেশের বাজারে নকল চিনা ওষুধ ঢুকছে এমন অভিযোগ অনেকদিনের। কিন্তু স্বাস্থ্য বিভাগ কখনোই বিষয়টিতে আমলে নেয়নি। বর্তমানে দেশের গ্রামে-গঞ্জে এ ওষুধ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। বাংলাদেশের ওষুধের মান আর্ন্তজাতিক মানের হলেও একশ্রেণীর অধিক মুনাফা লোভী ওষুধ ব্যবসায়ী কৌশলে বিভিন্ন নামকরা ওষুধের কোম্পানির নামেই চিনা ওষুধ বিক্রি করছে।

কিছুদিন পূর্বে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ৪০ হাজার পাতা নকল ওষুধ উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিন জনকে গ্রেফতারও করে সিআইডির একটি দল। এসব নকল ওষুধের বেশিরভাগই চিন থেকে আমদানি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তদন্তকারীরা।

সিআইডি আধিকারিক জানান, বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত দেড় মাস ধরে তদন্ত চালানো হয়। শেষমেশ গত দুদিনে অভিযান চালিয়ে তাঁতীবাজার থেকে নকল ওষুধ বিক্রেতাদের আটক করা হয়। এদের মাঝে বৃহস্পতিবার রাতে রুহুল আমিন, নিখিল রাজবংশী এবং শুক্রবারে মোহাম্মদ সাইদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বিপুল পরিমাণে নকল ওষুধ চিন থেকে আমদানি করে ঢাকার মিটফোর্ডের ওষুধ মার্কেটসহ বিভিন্ন জেলায় মজুত করা হত বলে জানতে পেরেছেন সেদেশের তদন্তকারীরা। বাজেয়াপ্ত হওয়া নকল ওষুধের মধ্যে ক্যান্সার প্রতিরোধক এমটি এক্স, ক্লোমাইড এবং রিভোকন ওষুধ রয়েছে। প্রাথমিক জেরায় ধৃতদের ব্যক্তিরা জানিয়েছে, বিভিন্ন নামকরা ওষুধের কোম্পানির নামেই এই নকল ওষুধগুলো আসত। চোরাপথে চিন থেকে ওষুধগুলি বাংলাদেশের বাজারে ছড়িয়ে পড়ত।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক এজন সরকারি ডাক্তার বলেন, এসব ওষুধের গুণগত কোন মান নেই। বরং কোন কোন ক্ষেত্রে রোগীর জন্য চরম বিপদ ডেকে আনে, অনেক সময় মৃত্যুও ঘটে। উচ্চ রাসায়নিক ব্যবহার করে তৈরী এই নকল ওষুধ শুধুমাত্র রোগীদের ক্ষতি করছে না, বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পের জন্যও তা হুমকী হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!