বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
সিলেটে দেশের ৩য় বৃহত্তম চিড়িয়াখানা, চালু হচ্ছে সীমিত জনবল নিয়ে  » «   ছাত্রলীগকর্মী তানিম হত্যা : আসামী ডায়মন্ড ও রুহেল ৫ দিনের রিমান্ডে  » «   জামেয়া গহরপুর মাদ্রাসার ৬১ তম বার্ষিক মাহফিল আজ  » «   সিলেটে অস্ত্রসহ হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার  » «   কার্ডিফের মতো সিলেট গড়তে চাই : মেয়র আরিফ  » «   সুনামগঞ্জে বোরো আবাদ : কৃষকদের চরম হতাশা, লক্ষ্যমাত্রা সোয়া ২ লাখ হেক্টর জমি  » «   সিলেটে পাথর কোয়ারীতে অভিযান : ১৫টি লিস্টার মেশিন ধ্বংস  » «   সিলেটে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ওসমানী স্মৃতি পরিষদের শীতবস্ত্র বিতরণ  » «   ওসমানীনগরে ইলিয়াস আলীর জন্য বিএনপি নেতা ফারুকের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ  » «  

বালাগঞ্জের দৃষ্টিনন্দন ‘সাতচালা বাড়ি’

রায়হান আহমদ :
খুঁজতে তেমন একটা বেগ পেতে হয় না। বাজারে একজনকে জিজ্ঞ্যেস করতেই বলে দিলো সেই সাতচালা বাড়ির গন্তব্যটুকু। বালাগঞ্জ উপজেলার বোয়ালজুর বাজারের পাশ্ববর্তী বড়ভাগা নদীর তীরে মজলিসপুর গ্রাম।

এ গ্রামের বাসিন্দা ধর্নাঢ্য প্রবাসী হাজী আজম আলী ১৯৯১ সালের দিকে এই সাতচালা বাড়ি নির্মাণ করান। সুনামগঞ্জের দক্ষ কাঠমিস্ত্রি কার্তিক মালাকারের পরামর্শে ও তাঁর নকশাখচিত অসাধারণ কারুকার্যে তৈরী করা হয় সাতচালার এই বাড়ি।

বাড়িটিতে ঢুকতে চোখে পড়ে প্রবেশ পথের দু-পাশে সারি সারি সবুজ গাছ, একটু ভিতরে এগোলেই চোখে পড়ে দোতলা বিশিষ্ট এই সাত চালার বাড়িটি। টিনের নকশা খচিত মনোমুগ্ধকর ঘরটি দেখলে জমিদারবাড়ি বলে ভুল হতে পারে যে কারো।

এই বাড়ি নির্মাণ প্রসঙ্গে প্রবাসী আজম আলীর পুত্র রাসেল আহমদ বলেন, তখনকার সময় গ্রাম্য-সালিশ ও বিভিন্ন ধরণের বৈঠকের আয়োজন এই সাতচালা বাড়িতেই অনুষ্ঠিত হতো। এজন্যই তার বাবা স্থায়ী এই বৈঠকখানা তৈরি করেন। সুদক্ষ কাঠমিস্ত্রি মৃত কার্তিক বাবুর সুনিপুণ কারুকাজের ধারা ৩ জন কাঠমিস্ত্রি দীর্ঘ ৯০ দিনের অক্লান্ত পরিশ্রমে নির্মাণ করেন এই বাড়ি।

তিনি আরো জানান, তৈরি হওয়ার পর বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক লোক সাতচালা বাড়ি দেখতে প্রতিদিন ভিড় জমাতেন এবং এখনো এই সাতচালা বাড়ি দেখতে অনেকে আসেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ