রবিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
শ্রীমঙ্গলে মার্কেটে চুরি, নিরাপত্তা কর্মী গুরুতর আহত  » «   এমপি পুত্রের শেষ স্ট্যাটাস ‘তোর জন্য চিঠির দিন..’  » «   হবিগঞ্জে সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪০  » «   বিয়ানীবাজারে চার লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই  » «   সিলেট-৩ আসনে কোন ছাড় দেওয়া হবেনা  » «   নির্বাচন আসছে, ভোটারদের কাছে যান ভদ্র আচরণ করেন : সিলেটে অর্থমন্ত্রী  » «   নবীগঞ্জে ব্রিজের অভাবে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষের  » «   সিলেট বিভাগীয় অনূর্ধ্ব ১৪ ক্রিকেট দলে গোয়ালাবাজারের আকিল  » «   বাংলাদেশকে ভালোবেসে রয়ে গেলেও এখনো নাগরিকত্ব পাননি দুই ব্রিটিশ  » «   বালাগঞ্জ উপজেলা সিএইচসিপিদের কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচি শুরু  » «  

পৃথিবীর ভেতর আরেক পৃথিবী !

সুরমা নিউজ :
সম্প্রতি চীনের চংকিং প্রদেশে আবিষ্কার হয়েছে এমন এক গুহা যে গুহায় নিজের আলাদা আবহাওয়া ব্যাবস্থা রয়েছে খাল, বিল, পাহাড়, আকাশ যাতে রয়েছে মেঘ এবং কুয়াশাও।

চীনের এই দুর্গম গুহাতে স্থানীয় বাসিন্দারা ছাড়া বাইরে কেউ যায়নি। সম্প্রতি গুহা বিশেষজ্ঞ এবং ফটোগ্রাফারদের সমন্বয়ে গঠিত একটি দল এই গুহার গোপনীয়তা আবিষ্কার করেন এবং ভেতরের বেশ কিছু দুর্লভ ছবি তুলে নিয়ে আসেন।

গুহার অভ্যন্তরে বিশেষজ্ঞ দল দেখতে পান সেখানে ধরতে গেলে পৃথিবীর ভেতরে আরেকটি অসাধারণ পৃথিবী যেখানে মেঘ বালুকনা জলীয়বাস্প সহ রয়েছে আলাদা আবহাওয়া ব্যবস্থা এবং সেখানকার আবহাওয়া অনেকটা শীতল।

গুহা অভিযাত্রী এবং ফটোগ্রাফার Robbie Shone ইয়ার ওয়াং ডং গুহা বিষয়ে বলেন, “এর আগে এত বিস্তৃত কোন গুহা আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি, সেখানে রয়েছে অসাধারণ কিছু বিষয় যা দেখে সত্যি আমরা অবাক হয়েছি, ইয়ার ওয়াং ডং গুহা বিশাল এক গুহা।”

তিনি আরও বলেন, “ এ গুহা এত বিশাল যে এর উপরের অর্ধেক অংশ পুরোটাই কুয়াশা এবং মেঘে ঢাকা। এর আকাশের অংশ প্রায় আনুমানিক ৮২০ ফুট উঁচু হবে সেখানে উঠা এবং ছবি ধারণ করা অসাধারণ অ্যাডভেঞ্চার ছিল ক্লাইম্বারদের জন্য। এর ভেতরে থাকা পরিতেক্ত পানি পান যোগ্য নয় এটা পুরোটাই নোনতা স্বাদযুক্ত।

ইয়ার ওয়াং ডং গুহার ভেতরের গভীরতা এতটাই বিশাল যে সেখানে শীতল আবহাওয়ার পাশাপাশি আর্দ্রতা ও অনেক শীতল ফলে শ্বাস প্রশ্বাস স্বাভাবিক নেওয়াটা অনেক কষ্ট সাধ্য।

এখানে একটা বিষয় উল্লেখ্য গুহার ভেতরে অনেক যায়গায় জলের পরিমাণ এতটাই বেশি যে সেখানে বিশাল বিশাল স্রোত বয়ে যাচ্ছে যা আপনাকে সহজেই ভাসিয়ে নিয়ে যেতে পারে। অভিযাত্রীরা তাদের মতামতে জানিয়েছেন এই গুহার ভেতরের পানি প্রবাহ ব্যবস্থা খুবই ভয়ংকর এবং বিধ্বংসী।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Email this to someonePrint this page

সর্বশেষ সংবাদ