রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যেসব ঘটনায় বছর জুড়ে আলোচিত ছিল সিলেট

সুরমা নিউজ:
নানা দুর্যোগ-দুর্ঘটনার মধ্য দিয়ে ২০১৭ সাল পার করেছে সিলেট। তবুও সফলতার পাল্লাই ভারি। বছর শেষে সিলেটের প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব কষলে দেখা যায়, প্রাপ্তিই বেশি। বছরের শুরুতে সিলেটের ‘আতিয়া মহল’ দেশ কাঁপালেও শেষ হয়েছে ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটির বিশ্ব স্বীকৃতির মধ্য দিয়ে। সমাদৃত হয়েছে গোটা বিশ্বে। তবে সিলেটে মার্চে ঘটে যাওয়া ‘আতিয়া মহল ট্রাজেডি’ সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছে। পাথর কোয়ারিতে প্রাণহানি, হাওরে অকাল বন্যা, রেকর্ড বৃষ্টিপাতও ছিলো আলোচিত ঘটনা।

দেশ কাঁপায় আতিয়া মহল : চলতি বছরের প্রথমদিকে দেশ কাঁপিয়েছে সিলেটের আতিয়া মহল। ২৪ মার্চ আতিয়া মহলে অভিযান শুরু করে পুলিশ। পাঁচ দিনের ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’-এ সফল সমাপ্তি হয়েছিল জঙ্গিবিরোধী অভিযানের। প্রশংসা কুড়িয়েছিল সেনাবাহিনীর কমান্ডো ইউনিট। কোনো ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই তারা আতিয়া মহলে আটকে পড়া ৭৮ বাসিন্দাকে নিরাপদে উদ্ধার করেছিল। তবে বাইরে পুঁতে রাখা বোমায় র‌্যাবের গোয়েন্দা প্রধান ও দুই ইন্সপেক্টরের নিহত হওয়ার ঘটনায় হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে সবার। আতিয়া মহলের মামলা এখন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) তদন্তাধীন।

শীতলপাটির বিশ্ব স্বীকৃতি : বছরের শেষদিকে আসে সিলেটের শীতলপাটির বিশ্ব স্বীকৃতি। ৬ ডিসেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার জেজু দ্বীপে ইউনেস্কোর ‘ইনটেনজিবল কালচারাল হেরিটেজ’ (আইসিএইচ) কমিটির ১২তম অধিবেশনে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটিকে বিশ্বের নির্বস্তুক সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য-২০১৭ (দি ইনটেনজিবল কালচারাল হেরিটেজ অব হিউম্যানিটি) হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়।

শিল্পপতি রাগিব আলী ও তার ছেলের দণ্ড: বছরের আলোচিত ঘটনার অন্যতম ছিলো শিল্পপতি রাগিব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাইয়ের কারাদণ্ড। সিলেটের তারাপুর চা বাগান জালিয়াতি মামলায় রাগিব আলী ও তার ছেলের পৃথক মামলায় ১৪ বছর করে এবং দণ্ডিতাবস্থায় পত্রিকা প্রকাশের অপরাধে আরো এক বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। এরপর তার মালিকানা দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার অনুমোদন বাতিল করা হয়। অবশ্য পরবর্তীতে উচ্চ আদালতের নির্দেশে পত্রিকা সচল হয়, রাগিব আলী ও তার ছেলে জামিনে বেরিয়ে আসেন।

পাথর কোয়ারিতে প্রাণ সংহার: বছরের শুরুতে (২৩ জানুয়ারি) সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ কোয়ারিতে পাথর উত্তোলনের সময় মাটি চাপায় প্রাণ হারান ৬ শ্রমিক। এ ঘটনায় নড়েচড়ে বসে প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর। শাস্তির খড়গ নামে স্থানীয় প্রশাসনেও। কিন্তু একের পর এক প্রাণ সংহারের ঘটনায় বিদায়ী বছরে প্রাণ হারান ৫ মাদরাসা ছাত্রসহ ৩২ জন। তারপরও অবৈধপন্থায় পাথর উত্তোলন বন্ধে পরিলক্ষিত হয়নি যথাযথ উদ্যোগ।

খাদিজা হত্যাচেষ্টা: সিলেট এমসি কলেজে খাদিজা আক্তার নার্গিসের ওপর কথিত প্রেমিকরূপী পাষণ্ড বদরুলের নির্মমতার কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। সেই বদরুলের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয় বছরের ৮ মার্চ। বহুল আলোচিত নার্গিস হত্যাচেষ্টায় বদরুলের দণ্ডাদেশ কি হচ্ছে- এ নিয়ে সারাদেশের মানুষের দৃষ্টি ছিলো সিলেটের আদালতে।

জঙ্গি রিপনের ফাঁসি: ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা মামলার আসামি জঙ্গি দেলোয়ার হোসেন রিপনের ফাঁসি কার্যকরের ঘটনা বছরের আলোচিত একটি। ১২ এপ্রিল রাতে সিলেটের কারাগারে ওই জঙ্গির ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

ফসল হারানোর বছর: অতিবৃষ্টিতে, উজানের ঢলে বছরের তিন ফসল বোরো, রোপা, আমন ঘরে তুলতে পারেন নি কৃষকরা। সেই সঙ্গে পানিতে বিষক্রিয়ায় মারা যায় মাছ ও হাঁস। হুমকির মুখে পড়ে জীববৈচিত্র্য। বিপর্যয় দেখা দেয় হাওরপাড়ে। হাওর তীরের মানুষের যখন অনাহারে মৃতপ্রায় দশা, ঠিক তখন ত্রাণ নিয়ে পাশে দাঁড়ায় সরকার। একইসঙ্গে হাওরের বাঁধ নির্মাণে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুর্নীতি ঝড় তুলেছিলো দেশব্যাপী।

বাল্য বিবাহমুক্ত সিলেট: এতো খারাপ খবরের মধ্যেও ভালো খবর ছিলো সিলেট বিভাগকে বাল্য বিবাহমুক্ত ঘোষণা। পুরো সিলেট বিভাগকে আনুষ্ঠানিক বাল্যবিয়ে মুক্ত ঘোষণা করা হয় ২৪ মে।

বৃষ্টিপাতে রেকর্ড: ২০১৭ সালে মৌসুমের শুরু থেকে ছিলো মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টিপাত। ফলে অতিবৃষ্টিতে, উজানের ঢলে বছরের তিন ফসল বোরো, রোপা, আমন ঘরে তুলতে পারেন নি কৃষকরা। মৌসুমে ৫ হাজার ৪৮৫ মিলিমিটার বৃষ্টিতে রেকর্ড গড়েছিলো ২০১৭। ১৯৫৬সালের পর ৫ হাজার মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছিলো ১৯৮৮ সালে। ওই বছর ৫ হাজার ৫৫০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতে বন্যা ও জলোচ্ছ্বাস হয়েছিলো।

বিপিএল: সিলেটের ক্রীড়াঙ্গনে বাংলাদেশ প্রিমিয়াম লীগ (বিপিএল) উন্মাদনা ছিলো এ বছরে। খানিক সময়ের জন্য হলেও বিপিএলের ৫ম আসর সিলেটের ক্রীড়ামোদীদের মাতিয়ে রেখেছিলো।

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে অগ্নিসংযোগকারীরা শনাক্ত :
সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজের ছাত্রাবাস পোড়ানোর ঘটনায় ৩২ জনের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পেয়েছে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি। ছাত্রলীগ ও ছাত্র শিবিরের বিরোধের কারণেই মূলত এ নাশকতা চালানো হয়েছে বলে তদন্তে জানা গেছে।

তামাবিল স্থলবন্দর উদ্বোধন : প্রায় ৭০ কোটি টাকা ব্যয়ে সিলেট তামাবিল স্থলবন্দরের উদ্বোধন হয় চলতি বছরের ২৭ অক্টোবর। ২৩ দশমিক ৭২ একর ভূমির মধ্যে ৬৯ কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত সিলেট তামাবিল স্থলবন্দরের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এটি চালু হওয়ায় বাংলাদেশ-ভারত উভয় দেশ উপকৃত হবে বলে আশাবাদী সংশ্লিষ্টরা।

সিসিকের নতুন ভবন : বিগত পাঁচ বছর ধরে অস্থায়ী ভবনে চলছিল সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) কার্যক্রম। প্রায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত আধুনিক ঝকঝকে নতুন ভবনের কাজ ২০১৭ সালে শেষ হয়।

সিলেট সদর ও ফেঞ্চুগঞ্জ শতভাগ বিদ্যুতায়ন : ১০ সেপ্টেম্বর সিলেটের সদর ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই উপজেলাগুলোয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!