শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে অতিথি পাখিদের আগমন শুরু, বরণ করতে প্রস্তুত প্রকৃতি

তোফায়েল আহমেদ পাপ্পু, মৌলভীবাজার থেকে:
বাংলাদেশের একমাত্র সুনামধন্য পর্যটন জেলা ও চা শিল্পাঞ্চল মৌলভীবাজারে এখন শীতের আমেজ বিরাজমান। অঞ্চলজুড়ে হালকা থেকে মাঝারি শীত অনুভূত হচ্ছে। আর এ শীতের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে হাওর ও বিলগুলোতে আসতে শুরু করেছে পরিযায়ী অতিথি পাখিরা।
মৌলভীবাজার জেলার পর্যটন প্রান কেন্দ্র চা শহর শ্রীমঙ্গলের তাপমাত্রা এখন ক্রমান্বয়ে কমতে শুরু করেছে। শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র ৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে ১০.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বুধবার ছিল ১০.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ক’দিন ধরে শ্রীমঙ্গলে চলতি শীত মৌসুমে এখন পর্যন্ত এটিই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বলে জানিয়েছেন স্থানীয় আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র অবজারভার মো. হারুনুর রশিদ।
জানাযায় ইতোমধ্যে এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকি (বড়লেখা,জুড়ী,কুলাউড়া) ও শ্রীমঙ্গলের বাইক্কা বিলে আসতে শুরু করেছে সুদূরের ল্যাঞ্জা হাঁসসহ নানা কতুক বর্ণের অতিথি পাখিরা। তাদের এই আগমনকে বরণ করে নিয়েছে এখানকার জলজ প্রকৃতি।
শীতের এ আগমনের সঙ্গে দ্রুত বদলে যাচ্ছে এখানকার প্রকৃতির রূপ। প্রতি বছরের মতো এবারও দেশের বৃহত্তম হাকালুকি হাওর ও বাইক্কা বিলে সুদূর সাইবেরিয়া, মধ্য এশিয়া, ইউরোপ অঞ্চলসহ বিভিন্ন শীত প্রধান দেশ থেকে অতিথি পাখিরা আসতে শুরু করেছে। অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে উঠতে শুরু করেছে পর্যটন জেলার পর্যটন বিল ও হাওরগুলো।
অতিথি পাখির কলকাকলিতে এখন মুখরিত বাইক্কা বিল এলাকা। দল বেঁধে পানকৌড়ি বাইক্কা বিলের চারদিকে উড়ছে। জলের বুকে ঝাঁপ দিচ্ছে। খাদ্যের সন্ধানে পানকৌড়ি ডুব দিয়ে বিলের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যাচ্ছে। তাদের সঙ্গে ভাসমান অবস্থায় কিচিরমিচির করছে সরালি পাখির ঝাঁক। আরও দেখা গেছে, শামুকভাঙা ও অতিথি পাখি বেগুনি কালেমের। এ দৃশ্য এখন বাইক্কা বিলজুড়ে। শীতের শুরুতেই বাইক্কা বিলে বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় ও অতিথি পাখি আসতে শুরু করে। শীত যত ঘনিয়ে আসছে ততই ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখি এ বিলে আসছে। পুরো শীত মওসুম কাটিয়ে বসন্তের শুরুতে আবার গন্তব্যে উড়াল দেবে তারা। স্থানীয় বাসিন্দা ও অভয়াশ্রম রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিতদের দাবি, সরকারিভাবে অভয়াশ্রম ঘোষণার পর গণমাধ্যমে বাইক্কা বিলের খবর প্রকাশিত হওয়ার পর্যটকদের উপস্থিতি আগের চেয়ে কয়েক গুণ বেড়ে গেছে।
শীতকালে বাইক্কা বিলে পর্যটকদের মূল আকর্ষণ পাখি। এসময় বিলে যেসব পাখির সরব উপস্থিতি মুগ্ধ করবে এর মধ্যে পানকৌড়ি, কানি বক, ধলা বক আর গোবক অন্যতম।
বড়গাংগিনা সম্পদ ব্যবস্থাপনা সংগঠনের (আরএমও) সদস্য এবং পাখি পর্যবেক্ষণ টাওয়ারের পর্যবেক্ষক মিরাশ মিয়া জানান, পরিযায়ী পাখির মধ্যে শুধু উত্তুরে ল্যাঞ্জা হাঁস আমার চোখে পড়েছে। এর মানে ওরা সুদূরের উত্তরের দেশগুলো থেকে চলে এসেছ বাইক্কা বিলে।
তিনি বলেন, দেশের আবাসিক পাখির মধ্যে বালি হাঁস,পাতি সরালি, বেগুনি কালেম, প্রভৃতি প্রজাতির হাঁস এসে জড়ো হতে শুরু করেছে। তবে বিল পরিষ্কার থাকায় পাখিগুলো বিলে নামলেও বেশি সময় অবস্থান করছে না। আরো সপ্তাহখানেক পর থেকে হয়তো তারা বিলে দীর্ঘ সময় অবস্থান করতে শুরু করবে।
মিরাশ মিয়া আরো বলেন, আর ক’দিনের মধ্যেই এ বাইক্কা বিল হাজার হাজার অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin
Email this to someone
email
Print this page
Print

সর্বশেষ সংবাদ

error: Content is protected !!